গুগল এডসেন্স কী ? Google AdSense কীভাবে কাজ করে

Last Updated: 
November 23, 2022
গুগল এডসেন্স (Google AdSense) হলো একটি advertising program যা ওয়েব সাইট ও ইউটিউব চ্যানেল মালিকদের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করার মাধ্যমে টাকা আয় করতে দেয়।

ওয়েব ট্রাফিক থেকে টাকা আয় করার জন্য গুগল এডসেন্স সবচেয়ে জনপ্রিয় উপায়। যদিও ব্লগ বা ভিডিও মনিটাইজ করার জন্য অনেক মাধ্যম আছে। কিন্তু, অনলাইনে আয়ের এর উৎস হিসেবে গুগল এডসেন্স (Google AdSense) সবচেয়ে সহজ উপায়।

গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে আপনি আপনার ব্লগ ও ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা আয় করতে পারেন। বর্তমান সময় Google এডসেন্স ব্যবহার করে আয় করা অত্যন্ত সহজ ও লোভনীয়। কেননা গুগল এডসেন্স থেকে টাকা তোলার উপায় ও সহজ।

আজকে আমরা জানব Google Adsense কী? এবং এটি কীভাবে কাজ করে?

গুগল এডসেন্স কী (What is Google AdSense in Bangla)?

Google AdSense হল একটি বিজ্ঞাপন প্রোগ্রাম, যা আপনি ব্লগ, ওয়েবসাইট বা YouTube ভিডিও ইত্যাদি কন্টেন্ট থেকে অর্থ উপার্জন করতে ব্যবহার করা যায়। ক্লায়েন্টরা এটির মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য অর্থ প্রদান করে এবং আপনি আপনার সাইট বা চ্যানেলে বিজ্ঞাপন হোস্ট করলে সেই আয়ের একটি অংশ পাবেন।

আমরা সকলেই গুগল সম্পর্কে জানি। গুগোল একটি সার্চ ইঞ্জিন যা কীনা অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেশন এর অন্তর্ভুক্ত একটি কোম্পানি।

গুগল এডওয়ার্ডস আলফাবেট ইনকর্পোরেটেড আয় এর একটি মাধ্যম। আমরা জানি, এডওয়ার্ডস ব্যবহার করে গুগলে বিজ্ঞাপন দেওয়া যায়। প্রতি বছর, Google তার প্রকাশকদের $10 বিলিয়নের বেশি অর্থ প্রদান করে।

বস্তুত এই প্ল্যাটফর্মকে যেভাবে কাজ করে তা হল, 

গুগল এডওয়ার্ডস এর মাধ্যমে, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ইনস্টিটিউশন এর অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্রদর্শনের দায়িত্ব নেয়। ও সেগুলো গুগলে নিজস্ব সাইটগুলোতে ও অ্যাডসেন্স পাবলিশার নেটওয়ার্ক এর অন্তর্ভুক্ত ওয়েব প্ল্যাটফর্ম গুলোতে এড প্রদর্শন করে।

আর,

অ্যাডসেন্স পাবলিশার নেটওয়ার্ক এর গেটওয়ে হল গুগল এডসেন্স। অর্থাৎ গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে গুগল বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও ইউটিউব চ্যানেল কে পাবলিশিং নেটওয়ার্ক যোগদান করার সুযোগ দেয়। 

অর্থাৎ

যে কোন কনন্টেন ক্রিয়েটর গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে তার ওয়েবসাইট ও চ্যানেল মনিটাইজ করার সুযোগ পেয়ে থাকে।

গুগল এডসেন্স এর মত আরেকটি থার্ড পার্টি নেটওয়ার্ক হল Admob. এডমোব ব্যবহার গুগল প্লে স্টোরে থাকা যে কোন অ্যাপস থেকে আয় করা যায়। নাম ভিন্ন হলেও এটির কাজ করার উপায় এডসেন্স এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

বিদ্রঃ চুরি করা Content, এডাল্ট, গেম্বেলিং বা বাজি নিয়ে করা ওয়েবসাইট পাবলিশার নেটওয়ার্ক এ allow করে না।

গুগল এডসেন্স কীভাবে কাজ করে? How AdSence Woks

বর্তমান সময়ে কাস্টমার ও ক্লায়েন্ট সবাই অনলাইনে বিভিন্ন কন্টেন্ট পড়ে ও দেখে সময় পার করে।

একজন ব্যক্তি হিসেবে আমি বা আপনি অনলাইনে বিভিন্ন প্রোডাক্ট কীনি। আর এই কারণে অনলাইন কোম্পানিগুলো তাদের প্রোডাক্ট ও সার্ভিস এর বিজ্ঞাপন অনলাইনে দেয়।

Google এডওয়ার্ডস ও এডসেন্স এর সমন্বয় একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্ল্যাটফর্ম। এটি একটি থার্ড পার্টি এড নেটওয়ার্ক হিসেবে কাজ করে।

অর্থাৎ,

বিভিন্ন কোম্পানি থেকে বিজ্ঞাপন এর কাজ নিয়ে সেগুলো পাবলিশার নেটওয়ার্কে থাকা ওয়েবসাইটে প্রদর্শন করে। এর বিনিময় গুগল বিজ্ঞাপন এর থেকে উপার্জিত অর্থের কীছু অংশ রাখে এবং সিংহভাগ পাবলিশার ওয়েবসাইটকে দেয়। 

সহজ করে বললে,

এডসেন্স প্ল্যাটফর্মটি হলো পাবলিশারদের জন্য। যারা কীনা তাদের ওয়েব কন্টেন্ট বা ওয়েবসাইটে গুগল এড Display করে তারা Adsense প্লাটফর্মকে ব্যবহার করে।

আর এই সিস্টেমে এডভেটাইজ করা হয় সেসব প্রতিষ্ঠান এর,  যারা গুগল এড ব্যবহার করে তাদের প্রোডাক্ট ও সার্ভিস এর বিজ্ঞাপন দিতে চান। 

এডসেন্স কীভাবে টাকা দেয়?

পুরো প্রসেস খুব সিম্পল। আপনাকে একটি এডসেন্স একাউন্ট খুলতে হবে এবং একটি কোড আপনার ওয়েবসাইটে হেডারের ভিতরে আপলোড করতে হবে।

আর তাহলে, গুগল আপনার সাইট এর কন্টেন্ট বা ইউজারের করা গুগল সার্চ এর উপর ভিত্তি করে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্রদর্শন করবে।

এখন,

পাবলিশার হিসেবে আপনি টাকা পাবেন আপনার ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত অ্যাডের ক্লিক এর উপরে। 

গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম এর ক্ষেত্রে দুটি মেট্রিক্স সম্পর্কে জানা দরকার।

সেগুলো হলো,  EPC (earnings per click) and CPC (cost per click).

বর্তমান সময়ে প্রতি ক্লিকে খরচের(CPC) 68 ভাগ পাবলিশার পায়। কোন এড ক্লিক এর মূল্য এক টাকা হলে আর্নিং পার ক্লিক (EPC) হবে .68 পয়সা। 

Google AdSense ব্যবহারের সুবিধা কী?

এখানে Google AdSense এর সুবিধা গুলো তুলে ধরা হলো।

  • বর্তমান সময়ে প্রায় এক কোটি দশ লাখ এর বেশি ওয়েবসাইট গুগল এডসেন্স ইউজ করে।
  • এডসেন্স এর সিকীউরিটি, সেফটি ও ট্রান্সপারেন্সি অনেক ভালো।
  • বিভিন্ন রকমের এড ফরম্যাট সাপোর্ট করে।বর্তমান সময়ে গুগোল টেক্সট ইমেজ এইচটিএমএল ভিডিও এড প্রদর্শন করে।
  • অ্যাডগুলো (AdSence ads) সব সময় সকল ডিসপ্লের জন্য খাপ খায়। অর্থাৎ, সেগুলো রেস্পন্সিভ।
  • গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করার জন্য আপনার কোন প্রোডাক্ট থাকতে হবে না। একটি ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেল প্রয়োজন, যেটাতে রিলেভেন্ট কন্টাক্ট রয়েছে।
  • এটি ব্যবহার করে টাকা ইনকাম করতে কোন ইনভেস্টমেন্ট এর প্রয়োজন পড়ে না। আবার আপনি আপনার বর্তমান চাকরি করেও সহজেই টাকা আয় করতে পারেন।
  • সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল অ্যাডসেন্স পাবলিশার নেটওয়ার্কে জয়েন করার জন্য কোন জয়েনিং ফি নেই। আর রেজিস্ট্রেশন প্রসেস খুব বেশি কঠিন না।

গুগল এডসেন্স থেকে কীভাবে টাকা আয় করবেন?

এতক্ষণ আপনি হয়তো বুঝতে পেরেছেন এডসেন্স পাবলিশার নেটওয়ার্কে যোগ দিতে চান করতে হলে আপনাকে কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হতে হবে। হোক সেটা ব্লগ কন্টেন্ট বা ভিডিও কন্টেন্ট।

লক্ষ্য রাখবেন অ্যাডসেন্স শুধুমাত্র ইউনিক তথা মৌলিক কন্টেন্ট সাইটকে approve দিবে। 

আবার এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে হলে এসইও জানা খুব জরুরি। কেননা ফ্রিতে ট্রাফিক জেনারেট করার জন্য এসইও খুব কার্যকর উপায়। এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করার ক্ষেত্রে গুগল সার্চ থেকে ভিজিটর পাওয়ার বিকল্প নেই।

কারণ,

ফ্রি ট্রাফিক এর অন্য মাধ্যম যেমন ফেসবুক, পিন্টারেস্ট, ইনস্টাগ্রাম, টুইটার, বা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে আশা ট্রাফিক গুলো মান সম্পন্ন হয় না।

আগেই বলেছি গুগোল দুটি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে এড শো করে, প্রথমে আপনার কন্টেন্ট ও দ্বিতীয়,ভিজিটর পূর্ববর্তী সার্চ ও ওয়েব ব্রাউজিং এর উপর ভিত্তি করে। 

সে কারণেই সোশ্যাল মিডিয়া থেকে আসা ভিজিটর গুলো কোয়ালিটিফুল হয় না। কোন সাইটে যদি ম্যাক্সিমাম ভিজিটর সোশ্যাল মিডিয়া বা অন্য কোনো মাধ্যম থেকে আসে, তাহলে এডসেন্স একাউন্ট লিমিট হয়ে যেতে পারে। 

সুতরাং অ্যাডসেন্স পাবলিশার নেটওয়ার্কে যোগদান এর আবেদন করার আগে আপনার ওয়েবসাইটে পর্যাপ্ত পরিমাণ কন্টেন্ট থাকতে হবে। 

এখন আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটর যত বেশি হবে তত বেশি অ্যাড একটি পড়ার সম্ভাবনা থাকে। 

সুতরাং, ভিজিটর যত বেশি হবে আয় তত বেশি হবে। তাই ব্লগিং এর সাথে সাথে এসইও শিখতে হবে।

এডসেন্স-এ Apply করবেন কীভাবে?

Google AdSense এর ওয়েবসাইটে গিয়ে SIgn Up বাটনে ক্লিক করলে একটি ফরম আসবে। এটি হলো এডসেন্স পাবলিশার নেটওয়ার্ক এর এপ্লাই ফর্ম।    

অর্থাৎ, এই form fill up করে apply করতে হবে। 

তবে,

আপনি যদি ইউটিউব ও ব্লগার সাইটের জন্য এপ্লাই করতে চান তাহলে ড্যাশবোর্ডে এডসেন্স এপ্লাই বাটন পেয়ে যাবেন।

কী তথ্য দিতে হবে?

  • একাউন্ট টাইপ - ইন্ডিভিজুয়াল বা কোম্পানি,
  •  নাম, ফোন নাম্বার,
  • ঠিকানা - বর্তমান ও পার্মানেন্ট,
  • ওয়েবসাইট লিংক, বা Youtube Channel Link.
  • টাইম জোন -বাংলাদেশের জন্য +৬

এখানে বলে রাখা ভালো এডসেন্স এপ্লাই করার পরে গুগোল কীছু দিন সময় নিবে আপনার ওয়েবসাইট অ্যাপ্লিকেশন যাচাই-বাছাইয়ের জন্য।

বর্তমান সময়ে গুগোল কোন ওয়েবসাইট পাবলিশিং নেটওয়ার্ক নেওয়ার পূর্বে গুগোল এমপ্লয়ি দের দ্বারা ম্যানুয়াল ভাবে যাচাই-বাছাই করা। সুতরাং নতুন সাইটের জন্য এটাতে কীছু দিন সময় লাগতে পারে। 

আর, আপনার ওয়েবসাইটে এড পাবলিশ এর জন্য উপযুক্ত বা অনুপযুক্ত যাই হোক না কেন তা অ্যাকাউন্ট করার সময় ব্যবহৃত মেইলে জানিয়ে দিবে। 

গুগল অ্যাডসেন্স পাবার শর্ত

গুগল এডসেন্স এ এপ্লাই করার আগে যে সকল বিষয় নিশ্চিত হতে হবে।

  • যে ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেলে AdSense ব্যবহার করতে চান সেটি আপনার হতে হবে। অর্থাৎ অন্যের সাইটের জন্য এপ্লাই করে লাভ হবে না।
  • আপনার বয়স ১৮ এর নিচে হলে আবেদন করতে পারবেন না। তবে আপনি চাইলে আপনার মা, বাবা বা অন্য কোন আত্মীয়ের নামে এপ্লাই করতে পারেন। তবে, পেমেন্ট যার নামে একাউন্ট করবেন তার নামে যাবে।
  • ইউনিক কন্টেন্ট থাকতে হবে।
  • AdSense-এর প্রোগ্রাম নীতি মানে এমন কন্টেন্ট থাকতে হবে। কোন প্রকার আডাল্ট, বাজি, সেন্সিটিভ দাটা, পাইরেসি কন্টেন্ট গান, সফটওয়্যার ডাউনলোড সহ যাবতীও অবৈধ জিনিষ সম্পর্কীত কন্টেন্ট থাকলে অ্যাডসেন্স পাওয়া যাবে না।

গুগল এডসেন্স সম্পর্কে কিছু কথা

Google এডসেন্স প্ল্যাটফর্ম আমাদের জন্য টাকা আয় করার সেরা উপায়। কেননা অনলাইনে অন্যান্য মাধ্যমে কাজ পাওয়া, ক্লাইন্টকে খুশি করা বেশ কঠিন কাজ। আর যারা ইনটেনসিভ ইনকাম এর স্বপ্ন দেখেন তাদের জন্য গুগল এডসেন্স ও আফিলিয়েট মার্কেটিং সবচেয়ে সেরা মাধ্যম।

কেননা আপনার পাবলিশ করা কোন কন্টেন্ট থেকে আপনি বছরের পর বছর আয় করতে পারেন। যা অনেক ফ্রিল্যান্সিং পেশায় সম্ভব নয়।

আপনি যদি নিজে কন্টেন্ট লিখতে পারেন হোক সেটা বাংলা বা ইংরেজি, বা ইউটিউবে ভিডিও তৈরি করতে পারেন তাহলে অ্যাডসেন্স আপনার জন্য উপযুক্ত। 

কেননা কপি কন্টেন্ট এ গুগোল AdSense approve করেনা। সময় নিয়ে কন্টেন্ট তৈরীর দিকে মনোযোগ দিতে হবে। 

কেননা একটি ভাল কন্টেন্ট এ গুগল থেকে নিয়মিত ভিজিটর পাওয়া সম্ভব। সুতরাং কন্টেন্টের মানের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। এবং, seo expart হতে হবে। 

আশা করি আপনাদের বুঝাতে পেরেছি। যাই - হোক কন্টেন্ট ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন বন্ধুদের মাঝে। আর আমার কাছে কোন কীছু জানার থাকলে, কমেন্ট করে জানাতে পারেন।

S M Lutfor Rahman
Internet Marketing Professional, from Bagerhat, Bangladesh. I write and share Digital Marketing tips and tutorials in Bangla especially on SEO, Google Adsense, and Affiliate marketing. Follow this blog to equip up for the basic & latest trends of online marketing and freelancing.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও পোস্ট

Ready for Action?

Cottage out enabled was entered greatly prevent message. No procured unlocked an likewise. Dear but what she been over guy felt body.
Let's Start
AboutTeamBlog
envelopephone linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram